KOLKATA WEATHER
এক ঝলকে

দামী বাইক চুরির দায়ে ধৃত ২ কুখ্যাত অপরাধী

নিজস্ব সংবাদদাতা, মুম্বাই: ১৪টি দামি বাইক চুরির অপরাধে একজনকে গ্রেফতার করল মহারাষ্ট্রের পিম্পরি চিঞ্চওয়াড ক্রাইম ব্রাঞ্চ ইউনিট । ১৪টি উদ্ধার হওয়া দামি বাইকের মধ্যে বুলেট,এফজেড কেটিএম আছে যার বাজারদর ১৭ লক্ষ টাকা।

পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণা প্রকাশ আজ সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন যে নাসিকের ভোরওয়াডা থেকে ধৃত রাজেন্দ্র ভান্ডানে(২৪), তার চুরি করা বাইকগুলো জলের দামে,১২ হাজার থেকে ১৫০০০ টাকায় গ্রাম্য অঞ্চলের মানুষের কাছে বিক্রি করত। এই চোরটি সবসময় বুলেট,এফজেড এবং কেটিএম, পালসার মডেলের মতো দামি বাইক চুরি করত পিম্পরি চিঞ্চওয়াড ও পুণে থেকে। চুরি করার পর সেগুলো সে বীড, আহমেদনগর এবং ধুঁলের গ্রাম্য মানুষের কাছে বিক্রি করত। সে গাড়ির আসল কাগজপত্র কিছুদিন বাদেই দেবে -বলে মানুষকে বোকা বানাতো।

আরও পড়ুনজঙ্গিবাদ থেকে মূলস্রোতে ফিরল কুড়ি জন যুবক

সহপুলিশ আধিকারিক গণেশ পাটিলের নেতৃত্বে এক পুলিশ দল গত চারদিন ধরে ধুঁলে,বীড, নাসিক, ঔরঙ্গাবাদ এবং আহমেদনগর জেলাতে অভিযান চালিয়ে ১৪ টি বাইক উদ্ধার করে,যার বাজার মূল্য ১৭ লক্ষ টাকা।

অভিযুক্তকে গত ১১ই সেপ্টেম্বর গ্রেফতার করে পুলিশ, পুলিশ কন্সটেবল গণেশ সাওয়ান্ত একটি খবর পায় যে ,সেদিন একটি চুরি করা কেটিএম বাইক নিয়ে চোরটি ভোসারি অন্কুশ ল্যান্ডেজ হল অঞ্চলে আসবে। এরপরেই ফাঁদ পাতে পুলিশ। ক্রাইম ব্রাঞ্চের পুলিশ ইন্সপেক্টর উত্তম টাংডে জানিয়েছেন ওই বাইক গত ১লা সেপ্টেম্বর ভোসারি থেকেই চুরি হয়েছিল।
পুলিশের দেওয়া হিসেবানুযায়ী অভিযুক্ত ১টি কেটিএম বাইক ভোসারির থেকে, ৩টি বুলেট চাকান থেকে,১টি বুলেট ওয়াকাড থেকে,১টি পালসার পিম্পরির এমআইডিসি-র থেকে,১টি করে বুলেট ভারতী বিদ্যাপীঠ, সহকারনগর, চতুরশিরিঙ্গি এবং হাডাপ্সার, সরকারওয়াডা এবং একটি এফজেড নাশিকের আম্বাড পুলিশ থানা অঞ্চল থেকে করেছিল।
পুলিশ ধৃত চোর রাজেন্দ্র ভান্ডানের আরো এক সঙ্গী সুনীল ভাম্রে(২৪)কে ধুঁলের গার্টাদ থেকে গ্রেপ্তার করেছে। এই সুনীলই চুরি করা বাইকগুলি বিক্রির কাজে সাহায্য করত অভিযুক্তকে।

রাজেন্দ্র ভান্ডানের একজন কুখ্যাত গাড়ী চোর,তার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই নাসিকে ৩৫ টি ও থানেতে ২টি গাড়ী চুরির কেস আগে থেকেই লিপিবদ্ধ রয়েছে।লকডাউনের সময় সে নাসিক থেকে টেম্পো বা ট্রাকে করে পুনেতে আসতো এবং বাইক চুরির পর সেই বাইকে চেপে বীড, ধুঁলে ও নাসিকে যেতো এবং সুনীলের সাহায্যে সেগুলি বিক্রি করত।
পুলিশের এসি রামনাথ পোখলে, ডিসিপি সুধীর হিরমাথ,এসিপি আর.আর পাটিলের নেতৃত্বে এই পুরো অভিযানটি চালায় ক্রাইম ব্রাঞ্চ ইউনিট ১।

 

মোবাইলে খবরের নোটিফিকেশন পেতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp , Facebook Group

আমাদের খবর পাঠাতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close