KOLKATA WEATHER
কলকাতাকলকাতা পুলিশদক্ষিণবঙ্গ

ড্রোনে নজরদারি শ্যামবাজার চত্বরে

নিজস্ব সংবাদদাতা,কলকাতা : দেশজুড়ে করোনার দাপট বেড়েই চলেছে। তারই মধ্যে চালু করা হয়েছে আনলক ৩-র প্রক্রিয়া। কিন্তু বাংলার অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাওয়ায় সাপ্তাহিক লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। অগাষ্ট মাসের দ্বিতীয় সাপ্তাহিক লকডাউন সফল করে তুলতে আরও কড়া হলো কলকাতা পুলিশ প্রশাসন। শহর জুড়ে চলছে নাকা চেকিং। উত্তর কলকাতার শ্যামবাজার কলকাতার একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগস্থল। সেখানে ভোর থেকেই ব্যারিকেড করে দিয়েছে পুলিশ। সকাল দশটা থেকে ড্রোনের মাধ্যমে গোটা এলাকায় নজরদারি চালানো হচ্ছে। রাস্তায় কড়া নজরদারি চালাচ্ছেন কলকাতা পুলিশের শ্যামপুকুর থানার অতিরিক্ত ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক সুব্রত দাস, অ্যাডিশনাল কমিশনার জয়নুল আবেদিন, ও থানার অন্যান্য পুলিশকর্মীরা। এছাড়াও লক ডাউনকে সফল করতে তাদের সঙ্গে ছিলেন শ্যামবাজার ট্রাফিক গার্ডের আধিকারিক ব্যানার্জি, কমিশনার সন্তোষ পান্ডে,ভিসি ট্রাফিক রূপেশ কুমার এবং এসি ট্রাফিক আর. এন. ভাদুড়ি সহ আরও অন্যান্য পুলিশ কর্মীরা।

আরও পড়ুনঃ লকডাউন সফল করতে তৎপর দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা পুলিশ

শ্যামপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক সুব্রত দাস জানান,তাদের থানার অন্তর্গত বস্তি এলাকা যেমন শোভাবাজার, কুমোরটুলি, বাগবাজার,বিধান সরনী, ও অন্যান্য জনবহুল এলাকায় প্রশাসনের তরফে সকাল থেকে কড়া নজরদারি ও মাইকিং চালানো হচ্ছে।
এছাড়াও, অন্যান্য দিনের মতোই শনিবার সকাল থেকেই উত্তর কলকাতার শহরতলির থানাগুলির লকডাউন সম্পর্কিত ব্যবস্থাপনা খতিয়ে দেখতে হাজির ছিলেন ডেপুটি কমিশনার জয়িতা বসু। এমনকি কিছু কিছু জায়গায় নাকা চেকিংয়ে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমিশনার জয়িতা বসু।
শনিবার দুপুর ১২ টা অবধি পাওয়া লকডাউনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী , সাপ্তাহিক লকডাউনে সফলতা মিলেছে। কলকাতাবাসীর মধ্যে করোনা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে গ্রেফতারির সংখ্যাও কমেছে। আর মানুষের এই জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে কলকাতা পুলিশের অবশ্যই অবদান রয়েছে।

মোবাইলে খবরের নোটিফিকেশন পেতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp , Facebook Group

আমাদের খবর পাঠাতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp
Close
Close