KOLKATA WEATHER
এক ঝলকেপুলিশের ডাইরি

। পুলিশের ডাইরি।।

চেঙ্গিজ

কিছু কিছু মানুষের কখনো নিজেকে
চেঙ্গিজ বলে মনে হয় ।
বুনো ঘোড়াদের ক্ষুর দাপানিতে
মুদিখানা গিরিবর্ত্ম হয়ে ওঠে
পিচভাঙা রাস্তার হাজারো উঁচুনিচু
আবছায়া ল্যাম্পপোস্টের থেকে
অল্প সরে গিয়ে সিল্ক রুটে খচ্চরের পিঠে
লবণের বস্তা নিয়ে ফেরে ।
বেগুন্তি মানুষের লাগামের ঝোঁক
নাগড়াই জুতো হয়ে রেকাবে ঝনাত মেরে
সিংহাসন খোঁজে
সাথে সসাগরা অর্ধেক পৃথিবী আর পাটরানী ।
চিলেকোঠা ঘরে একপাটি তোলা আছে নাগড়াই
ফুলশয্যার পর থেকে
কোনো নেমন্তন্ন খেতে গিয়ে, এমনকি টাবুনের পৈতেয়,
তার কথা মনে পড়েনি । শুধু প্রতি শুক্রবার
মাঝরাতে শিকারের পালা শেষ হলে
পায়জামা কষে বেঁধে
পুরো এন্টাসিড একগ্লাস জলে খাবার পরে
প্রতিবারই যখন নিজেকে গোটাতিন ঢেকুরের পর
উঠোনের থেকে গ্রিল বেয়ে আসা আবছা আলোয়
আচমকা চেঙ্গিজ মনে হয়,
সেই বস্তার নীচে চাপা পড়া নাগড়াই
ঝলসিয়ে ওঠে আর ধারালো বিরাট এক তলোয়ার
খাপ থেকে হাতে উঠে
সেও ঝলসায় , খাতের পুকুর জুড়ে মালভূমি ছায়া ফেলে,
তার ধারে ঢালু পথে পাথরে ধাক্কা মেরে বুনোঘোড়া ছোটে,
রেকাবিতে নাগড়াই, “হরিপদ কেরানি” প্রতি শুক্রবার শেষরাতে
বারান্দায় চেঙ্গিজ খান হয়ে ওঠে ।
বিছানায় ফিরে ততক্ষনে প্রতিবার হরিপদ কেরানির জাঁদরেল বউ
বালিশের পাশে আধভেজা টাওয়েল আর মোবাইল ফোন রেখে
ঘুমিয়ে পড়েছে ।
( লেখক: IPS দেবাশীষ চক্রবর্তী)

মোবাইলে খবরের নোটিফিকেশন পেতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp , Facebook Group

আমাদের খবর পাঠাতে এখানে ক্লিক করুন - Whatsapp
Close
Close